1. admin@narsingdirkanthosor.com : admin :
শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ০২:১৫ পূর্বাহ্ন

নরসিংদীতে হত্যা মামলায় সাক্ষ্য দেওয়ায় সাক্ষীকে গুলি

সুজন বর্মণ | নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • প্রকাশিতঃ শুক্রবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২২
  • ২৮২ বার

সুজন বর্মণ : নরসিংদীতে হত্যা মামলায় সাক্ষী দেয়াকে কেন্দ্র করে আসামীদের ছোড়া গুলিতে আহত হয়েছেন সজিব মিয়া (৩০) নামের এক সাক্ষী। আজ শুক্রবার দুপুরে সদর উপজেলা পাঁচদোনায় এ ঘটনা ঘটে। সন্ত্রাসীদের গুলি ও ছুড়িকাঘাতে আহত সজিব মিয়া সদর উপজেলার আসমান্দিরচর এলাকার দুলাল মিয়ার ছেলে। তিনি শিবপুরের আলোচিত আরিফ পাঠান হত্যা মামলার অন্যতম সাক্ষী ছিলেন।

আহতের স্বজনরা জানায়, শুক্রবার জুম্মার নামাজের উদ্দেশ্যে মসজিদ যাচ্ছিলো সজিব। পথিমধ্যে পাঁচদোনা স্কুলের সামনে পৌঁছলে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা হত্যা মামলার প্রধান আসামী টিটু, আসামী মাসুদ এবং পলাশের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী সজিবের উপর হামলা চালায়। এসময় সে দৌঁড়ে পালাতে থাকলে গুলিছুড়ে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। পরে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে যায়।

নরসিংদী জেলা হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. তাসরিফা আমরিন হক অন্তরা জানায়, দুপুরে সজিব মিয়া নামে ওই রোগি হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আসার পর প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তাদের পক্ষ থেকে গুলির কথা উল্লেখ করা হলেও আমরা নিশ্চিত নই। আঘাতের কারণ নির্ণয় এবং উন্নতি চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজে প্রেরণ করা হয়েছে।

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) আল-আমিন বলেন, আমরা হামলার খবর পেয়েছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনা তদন্ত করে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের পহেলা এপ্রিল সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন শিবপুরের পুটিয়া ইউনিয়নের তৎকালীন ইউপি সদস্য আরিফ হোসেন পাঠান। তার ছোট ভাই রোমান পাঠান বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় টিটু, মাসুদ এবং পলাশসহ অন্যান্যদের আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়।

এ মামলায় অন্যতম সাক্ষী করা হয় গুলিতে আহত সজিব মিয়াকে। এ মামলায় গত ১১ অক্টোবর ছিলো আদালতে চূড়ান্ত সাক্ষ্য গ্রহণ। আসামী পক্ষ সজিবকে সাক্ষী না দেয়ার জন্য হুমকি দিচ্ছিলো। সজিব তাদের হুমকি উপেক্ষা করে আদালতে সাক্ষ্য প্রদান করে। আর হুমকির ঘটনায় মাধবদী থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।

আরো খবর..
© নরসিংদীর কন্ঠস্বর
Developed By Bongshai IT