1. admin@narsingdirkanthosor.com : admin :
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০১:০৬ পূর্বাহ্ন

জাতীয় স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত শিল্পী রাইসার শুভ জন্মদিন

সাব্বির হোসেন | নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ২৭৯ বার

সাব্বির হোসেন, নিজস্ব প্রতিবেদক : নরসিংদীর কৃতি সন্তান জাতীয় স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত শিশু শিল্পী ও চ্যানেল আই এর ক্ষুদে গানরাজ তাসনিম আনাম রাইসা। তিনি ‘সুখ-দুখ, হাসি-কান্না, জীবনের ভালোলাগা মুহুর্ত আর সকলের নিরন্তন ভালোবাসা নিয়ে আজ পদার্পণ করলেন আরেকটি নতুন বছরে-‘শুভ জম্মদিন’। প্রতিটি দিন কাটুক ফুলের সুভাষে  ‘প্রতিষ্ঠিত হোক কর্মময় জীবন।

একজন শিল্পী হিসাবে আগামীতেও তাঁর এ পথচলা অব্যাহত থাকবে। তিনি আছেন এবং ভবিষ্যতেও থাকবেন মানুষের ভালোবাসা নিয়ে। মানুষের সম্মান আর দোয়া তার এ চলার পথ আরও প্রসারিত হবে।

এদিকে নরসিংদী জেলার খ্যাতিমান শিল্পীর জম্মদিনে সঙ্গীতাঙ্গনের বিভিন্ন মানুষজন, তার শুভাকাঙ্খী ও ভক্তরা সকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুক, মোবাইল ও তার বাসায় এসে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, দেশের এই উদীয়মান শিল্পী ২০০১ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর নরসিংদী জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। বাবা মুহাম্মদ খায়রুল আন্আম নরসিংদীর ব্রাহ্মন্দী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক ও মা তাছমিনা ইয়াছমিন রুনা। রাইসা তাদের একমাত্র সন্তান।

রাইসা বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের “মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ” বিভাগে অধ্যয়নরত। সে ২০১৯ সালে নরসিংদী সরকারী কলেজের বিজ্ঞান বিভাগে এইচএসসি পরীক্ষায় বোর্ড বৃত্তিসহ গোল্ডেন জিপিএ-৫ পায়। এর আগে ২০১৭ সালে ব্রাহ্মন্দী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে সে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত হয়। এছাড়াও সে ২০১৪ সালে জেএসসি পরীক্ষায় বোর্ড বৃত্তিসহ গোল্ডেন জিপিএ-৫ এবং ২০১০ সালে পিইসি পরীক্ষায় টেলেন্টপুলে বোর্ড বৃত্তিসহ গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ করে।

নানাভাই মো. আবু তাহের (নরসিংদী জেলা প্রতিনিধি, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা) এর অনুপ্রেরণায় মাত্র সাড়ে ৩ বছর বয়সে সংগীতে হাতে খড়ি নেয় রাইসা। সেই থেকে সংগীত জীবনে তার পথচলা শুরু হয়। তার সংগীতে হাতেখড়ি হয় নরসিংদীর পূরবী সংগীত একাডেমীতে চিত্রা বিশ্বাসের কাছ থেকে।

রাইসা ৪ বছর বয়স থেকে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী নরসিংদী জেলা শাখায় সংগীত, নৃত্য, আবৃত্তি ও চিত্রাঙ্কনে ৩ বছর মেয়াদী কোর্সে ভর্তি হয়ে ২০০৮ সালে বার্ষিক পরীক্ষায় ১ম বিভাগে ১ম স্থান অর্জন করে। সে নরসিংদী নজরুল একাডেমী ও জেলা শিল্পকলা একাডেমীর উচ্চাঙ্গসংগীতের কোর্স সম্পন্ন করে। রাইসা ৬ বছর বয়স হতে বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনের স্বনামধন্য কণ্ঠশিল্পী মো. আসাদুজ্জামানের কাছে তালিম নিচ্ছে এবং বর্তমানে বৈশাখী সংগীত একাডেমীতে অধ্যয়নরত আছে।

রাইসা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত শিল্পী হিসেবে তার সুরেলা কণ্ঠে গান পরিবেশন করে ইতোমধ্যেই অনেক সুনাম অর্জন করেছে। বর্তমানে রাইসা বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের নজরুল সংগীতে তালিকাভুক্ত নিয়মিত শিল্পী। এছাড়াও সে দেশের বিভিন্ন বেসরকারি চ্যানেলেগুলোতে নিয়মিত সংগীত পরিবেশন করে থাকে।

রাইসা এ পর্যন্ত জাতীয় স্বর্ণপদকসহ মোট ১৪ টি জাতীয় পুরস্কার লাভ করেছে। ২০১৬ সালে সে মহামান্য রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ’র হাত থেকে উচ্চাঙ্গসংগীতে জাতীয় পুরস্কার লাভ করে। ২০১৫ সালেও রাষ্ট্রপতির হাত থেকে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ পুরস্কার গ্রহণ করে। রাইসা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে ৪ বার জাতীয় পুরস্কার ও সনদ গ্রহণ করে।

সে ২০১৪ সালে উচ্চাঙ্গসংগীতে জাতীয় পর্যায়ে ৩য় হয়ে ব্রোঞ্জপদক, ২০১১ সালে জাতীয় পর্যায়ে নজরুল সংগীতে ২য় হয়ে রৌপ্যপদক ও ২০১৩ সালে জাতীয় পর্যায়ে নজরুল সংগীতে ১ম হয়ে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের মাননীয় স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরীর হাত থেকে স্বর্ণপদক গ্রহণ করে। রাইসা ইসলামিক ফাউণ্ডেশন এর জাতীয় শিশু কিশোর প্রতিযোগিতায় জাতীয় পর্যায়ে ইসলামিক গানে তিনবার ১ম স্থান ও দুইবার ২য় স্থান অর্জন করে।

এছাড়াও, শেখ রাসেল সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা, পদ্ম কুঁড়ি জাতীয় সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতাসহ বেশ কয়েকটি জাতীয় প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়েছে। গানের পাশাপাশি আবৃত্তিতেও রাইসার ২ টি জাতীয় পুরস্কার রয়েছে, তদ্মধ‍্যে শেখ রাসেল সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় ১ম স্থান ও অপরটি ইসলামিক ফাউণ্ডেশন জাতীয় শিশু কিশোর প্রতিযোগিতায় ২য় স্থান।

রাইসা ২০১৩ সালে চ্যানেল আইয়ের জনপ্রিয় সংগীত বিষয়ক রিয়ালিটি শো “চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ” এ অংশ নিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ৮৫০০০ প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে, প্রতিযোগিতার সব ধাপ পেরিয়ে, গ্র্যান্ড ফিনালেতে ৪র্থ স্থান অর্জন করে নরসিংদীবাসীর জন্য সুনাম বয়ে আনে। এর আগে, ২০১১ সালে ভারতীয় চ্যানেল “রূপসী বাংলা” এর “সিংগিং স্টার” নামক রিয়ালিটি শো তে বাংলাদেশের প্রতিযোগী হিসেবে অংশ নিয়ে “হট পারফর্মার” খেতাব লাভ করে ও ভারতের “রেডিও মিরচি” এর পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক লাভ করে।

রাইসা নরসিংদীর শ্রেষ্ঠ শিল্পী হিসেবে নিলাম্বরী ললিতকলা একাডেমী থেকে ৩ বার স্বর্ণপদক লাভ করে এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজুর কাছ থেকে সম্মাননা পদক গ্রহণ করে। সে ২০১৩ সালে নরসিংদী জেলার সেরা শিল্পী ও ক্ষুদে গানরাজ হিসেবে নরসিংদীর জনপ্রিয় সাংস্কৃতিক সংগঠন “বৈশাখী সংগীত একাডেমী” এর পক্ষ থেকে সম্মাননা পদক গ্রহন করে।

২০১৪ সালে নরসিংদী জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে জেলার সেরা শিল্পী হিসেবে তৎকালীন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এড.আসাদোজ্জামানের কাছ থেকে সম্মাননা পদক গ্রহণ করে। ২০১৭ সালে ফেমাস ইনস্টিটিউট এর পক্ষ থেকে জেলার সেরা কণ্ঠশিল্পী হিসেবে সম্মাননা পদক লাভ করে।

রাইসার প্রথম এলবাম “নবীন কণ্ঠে নজরুল” প্রকাশিত হয় ২০১৬ সালে “বাংলাদেশ নজরুল সংগীত শিল্পী পরিষদ” এর ব্যানারে। তাছাড়াও রাইসার বেশ কিছু মৌলিক গান ইতোমধ্যে ইউটিউবে বেশ সাড়া জাগিয়েছে। ২০১৬ সালের ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে তার প্রথম মিউজিক ভিডিও প্রকাশিত হয় এবং একই বছর তার আরো একটি মৌলিক গান প্রকাশিত হয়। এ দুটি গানেরই গীতিকার নুরুল আমিন ও সুরকার বাংলাদেশ বেতারের সিনিয়র প্রডিউসার রাফি মোহাম্মদ খান।

২০১৭ সালে বিশ্ব শিশু দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর উদ্যোগে রাইসার কণ্ঠে থিমসং ও মিউজিক ভিডিও প্রকাশিত হয়। ২০১৮ সালে “উঠবো জেগে ছুটবো বেগে” শির্ষক বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর থিমসংটিও রাইসার কণ্ঠে প্রকাশিত হয়।

বাংলাদেশ শিশু একাডেমী থেকেই রাইসার কণ্ঠে কবি কাজী নজরুল ইসলামের কবিতায় জনপ্রিয় সংগীত পরিচালক আশরাফ বাবুর সুরারোপিত দুটি ছড়াগান ও আরো দুটি মৌলিক গান প্রকাশিত হয়, যে গান দুটি লিখেছেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় সচিব নাসিমা বেগম। এছাড়াও বাংলাদেশ বেতারে রাইসার কণ্ঠে বেশ কিছু মৌলিক গান প্রচারির হয়েছে।

এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো : বাংলাদেশ বেতারের সিনিয়র প্রডিউসার রাফি মোহাম্মদ খান এর কথা ও সুরে “ঘুমিয়ে আছেন জাতির পিতা তাঁরই স্বাধীন দেশে”, “আমাদের আছেন জাতির পিতা”, প্রফেসর কালাম মাহমুদ এর কথা ও মোঃ আসাদুজ্জামান এর সুরে ” স্বাধীন বাংলার নাও ভাসাইলাম”, “কে বলে রে বঙ্গবন্ধু নাই”, প্রফেসর ফরিদ উদ্দিন মুরাদ এর কথা ও মোঃ আসাদুজ্জামান এর সুরে ” গেয়েছিলে বঙ্গবন্ধু শেকল ভাঙার গান” সহ আরো বেশ কিছু মৌলিক গান।

রাইসার কণ্ঠে প্রকাশিত হয়েছে তার নিজের কলেজ নরসিংদী সরকারী কলেজের থিমসং। ক্যাম্পাস জীবনের কথা নিয়ে তার আরো একটি মৌলিক গান রয়েছে যার শিরোনাম ” ক্যাম্পাসের দিনগুলো”।

রাইসার সম্প্রতি প্রকাশিত মৌলিক গান হলো ফরিদ বঙ্গবাসীর সংগীতায়োজনে “তোমার সাথে ভাব করিয়া হইলো সুখের মরণ”, রেইন মিউজিকের ব্যানারে আলী মোবারকের কথা ও সুরে ” পাখির বুঝি পুরান খাঁচা ভাল্লাগে না”, নরসিংদী সরকারী কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহমুদুল হাসান মাসুদ স্যারের কথা ও সুরে মোট ৫ টি মৌলিক গান যেগুলো ইতোমধ্যেই ইউটিউবে যথেষ্ট সাড়া ফেলেছে।

সব মিলিয়ে রাইসার মোট ২১ টি মৌলিক গান ইতোমধ্যে বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। রাইসার নিজের লেখা ও সুর করা তার আরো কয়েকটি মৌলিক গানও খুব শীঘ্রই রাইসার ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত হবে। তাছাড়াও, ওয়ার্ল্ড মিউজিক বাংলার ব্যানারে রাইসার দুটি কভার গান প্রকাশিত হয়েছে- গান দুটি হলো শাহনাজ রহমতুল্লাহর “ফুলের কানে ভ্রমর এসে” এবং সাবিনা ইয়াসমিনের “শুধু গান গেয়ে পরিচয়”।

রাইসার আরো বেশ কিছু মৌলিক গান ও কভার গান এবং একটি এলবামের কাজ চলছে যেগুলো খুব শীঘ্রই প্রকাশিত হবে ও শ্রোতাদের কাছে পৌঁছে যাবে। “রাইসা সুগন্ধি” নামে রাইসার নিজের একটি ইউটিউব চ্যানেল আছে যেখানে সে তার মৌলিক গান সহ নিয়মিত শ্রোতাদের পছন্দের বিভিন্ন গান কভার করে আপলোড করে থাকে।

রাইসা বরাবরই তার শিক্ষাক্ষেত্রে ও সংগীত চর্চায় কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছে। এ অর্জনে সে তার মা-বাবা, শিক্ষক- শিক্ষিকা, আত্মীয়-স্বজন ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাছে কৃতজ্ঞ।

আরো খবর..
© নরসিংদীর কন্ঠস্বর
Developed By Bongshai IT